ওয়াইফাই সিগন্যাল শক্তিশালী করার ছয়টি উপায়

ওয়াইফাই সিগন্যাল শক্তিশালী করার ছয়টি উপায়

নিউজ ও ইভেন্ট

ইন্টারনেট ব্যবহারের জন্য অনেকেই এখন ওয়াইফাই ব্যবহার করছেন। আর এ ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক প্রায়ই পূর্ণ গতিতে চালানো যায় না। বাড়িয়ে নিতে চান এর গতি? এ লেখায় থাকছে ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক শক্তিশালী করার ছয়টি উপায়।

১. ওয়াইফাই রাউটারে একাধিক অ্যান্টেনা থাকলে সবকটি উপরের দিকে তুলে রাখার প্রয়োজন নেই। একটি অ্যান্টেনা উপরের দিকে তাক করে রেখে বাকি অ্যান্টেনাগুলি অন্যদিকে ঘুরিয়ে রাখুন। এতে ঘরের সব দিকে সমান সিগনাল পৌঁছাবে।

২. ওয়াইফাই সিগনাল একটি রেডিও ওয়েভ। তাই আপনার স্মার্টফোন বা ল্যাপটপের সঙ্গে ওয়াইফাই রাউটারের দুরত্বের সঙ্গে এর মাঝে কটি দেয়াল রয়েছে তার উপরে সিগনালের শক্তি নির্ভর করে। রাউটার ও আপনার ডিভাইসের মধ্যে একাধিক দেওয়াল বা ধাতব পদার্থ থাকলে ওয়াইফাই সিগনালের শক্তি অনেকটাই কমে যাবে। আর স্লো হয়ে যাবে আপনার ইন্টারনেট।

৩. বাড়িতে আমরা যে রাউটারগুলি ব্যবহার করি তা সবসময় নিচের দিকে সিগনাল পাঠায়। ফলে রাউটার যত উপরে রাখবেন সারা বাড়িতে তত ভালো সিগনাল পৌঁছে যাবে। দোতলা বা তিনতলা বাড়ি হলে বাড়ির উপরের তলার ওয়াইফাই রাউটার রাখার চেষ্টা করুন।

৪. ধুলো, বালি থেকে রক্ষা করতে রাউটার আলমারি বা কোন বাক্সের মধ্যে ধুকিয়ে রাখবেন না। এতে ওয়াইফাই এর শক্তি কমে যাবে। রাউটার সবসময় খোলা জায়গায় রাখুন। এতে সারা বাড়িতে ওয়াইফাই সিগনাল আরও শক্তিশালী হবে।

৫. বাড়ির এক কোণায় রাউটার রাখবেন না। বাড়িতে মাঝামাঝি এক জায়গায় ওয়াইফাই রাউটার রাখার চেষ্টা করুন। এতে বাড়ির সর্বত্র সমানভাবে সিগনাল ছড়িয়ে পড়বে।

৬. রাউটার কম্পিউটারের পাশে রাখার কোন প্রয়োজন নেই। রাউটারের পাশে রেফ্রিজারেটার টিভির মতো ইলেকট্রনিক অ্যাপলায়েন্স রাখবেন না। এই যন্ত্রগুলি থেকে নির্গত তরঙ্গ ওয়াইফাই সিগনালের শক্তি কমিয়ে দেয়।

For You, With You, For Ever…. 

সমাহার ডট নেট-এর  পণ্য সামগ্রী ও সেবা পেতে রিসেলার, সেলার সেন্টারে সরাসরি যোগাযোগ করুন।

  • অ্যাপ, সফটওয়্যার, ওয়েবসাইট, ডিজিটাল মার্কেটিং ও ডোমেইন হোস্টিং রেজিস্টেশন করা হয়।
  • নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী, ফ্যাশন, পারফিউম, মেডিসিন, মোবাইল ফোন, কম্পিউটার, ল্যাপটপ, ফ্রিজ, টিভি, ক্যামেরা, মোটরবাইক, আসবাবপত্র, এপার্টমেন্ট, বাণিজ্যিক এবং আবাসিক প্রপাটির পাশাপাশি জমি ও প্লট সুলভ মূল্যে বিক্রি করা হয়। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও সাধারণ ভোক্তাদের জন্য নিবেদিত বিভিন্ন রকমের সার্ভিসগুলো দেয়া হয়।
  • আমাদের রিসেলার হয়ে অবসর সময়ে বিনিয়োগ ছাড়া, দৈনিক শুধু ৩-৪ ঘন্টা সময় দিয়ে নিশ্চিত পেসিভ ইনকাম করুন। ৬/৭ মাস নিয়মিত সময় দিলে অবশ্যই মাসিক ৩০ থেকে ৫০ হাজার টাকা ইনকামের নিশ্চয়তা রয়েছে।
  • আকর্ষণীয় কমিশনে ডিলার, এজেন্ট ও সেলার সেন্টার দেয়া হচ্ছে…

এছাড়াও আপনি আপনার ব্যবসার জন্য ট্রেডিশনাল মার্কেটিং অথাৎ সরাসরি আপনার ব্যবসার প্রচার করাতে চাইলে। সমাহার ডট নেট এর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। যেখান থেকে আপনি আপনার ব্যবসার জন্য খুবই কম খরচে ডিজিটাল মার্কেটিং অথবা ট্রেডিশনাল মার্কেটিং করাতে পারবেন। এছাড়া ও সমস্ত প্রকার ডিজিটাল অথবা ট্রেডিশনাল সুবিধা নিতে পারবেন।

আপনি যদি আপনার ব্যবসাকে কি ভাবে অনলাইনে নিয়ে যাবেন বা ব্যবসাকে বড় করবেন অথাৎ ব্যবসার প্রসার ঘটাবেন তা জানতে চান তবে , সময় নষ্ট না করে এখুনি  রিসেলার, সেলার সেন্টারে সরাসরি যোগাযোগ করুন।  তার জন্য আপনাকে কোনো টাকা খরচ করতে হবে না। সম্পূর্ণ ফ্রীতে আপনি পরামর্শ পাবেন।

আশা করি এই পোস্টটি আপনাকে দরকারী কিছু তথ্য দিয়েছে। পরবর্তী পোস্ট পাওয়ার জন্য সাথেই থাকুন

Leave a Reply