আর.সি.সি. মেঝে স্ল্যাব কাকে বলে?কত প্রকার কি কি?

আর.সি.সি. মেঝে স্ল্যাব কাকে বলে?কত প্রকার কি কি?

নিউজ ও ইভেন্ট
আর.সি.সি. মেঝে স্ল্যাবঃ(R.C.C. floor slab)
রড সিমেন্ট কংক্রিট দিয়ে নির্মিত সমতল পাতলা ঢালাইকে স্ল্যাব বলে। এটি সাধারণত প্রশস্ত এবং এর উপর ও নিচের তল প্রায় সমান্তরাল হয়ে থাকে। একাধিক তলা বিশিষ্ট বাড়ির নিচের তলায় যেটা ছাদ উপরের তলায় সেটা মেঝে হিসেবে পরিচিত। তবে দালানের সর্ব উপরের স্ল্যাবকে সাধারণত ছাদ স্ল্যাব এবং ভিরের অন্যান্য স্ল্যাবকে মেঝে স্ল্যাব বলে। স্ল্যাব সাধারণত রিইনফোরসড কংক্রিট বীম অথবা ইটের দেওয়াল অথবা ইটের দেওয়াল অথবা ষ্টীল মেম্বার অথবা সরাসরি কলাম অথবা ভূমির উপরে অবস্থান করে।
একমুখী স্ল্যাবঃ(One way slab) যে সমস্ত স্ল্যাবগুলোর প্রস্থ বরাবর বিপরীত প্রান্তদ্বয় সমান্তরাল বীম অথবা দেওয়ালের উপর অবস্থান করে এবং প্রধান রড গুলো কেবলমাত্র একদিক ব্যবহার করা হয়, তাকে একমূখী স্ল্যাব বলে। একমূখী স্ল্যাবের প্রধান রডগুলো স্ল্যাব প্যানেলের প্রস্থ বরাবর স্থাপন করা হয় এবং দৈর্ঘ্য বরাবর টেম্পারেচার ও শ্রিংকেজ রড ব্যবহত হয়। এই স্ল্যাবের উপর আরোপিত লোড এবং স্ল্যাবের নিজস্ব ওজন প্রধান রডের মাধ্যমে দেওয়াল অথবা বীম এর উপর ন্যাস্ত করা হয়। এখানে বিশেষভাবে উল্লেক্ষ্য যে, যদি স্ল্যাবের দৈর্ঘ্য এবং প্রস্থের অনুপাত ২ অথবা ২ এর বেশি হয়।
১। একদিকে রিইনফোরসমেন্টএর প্রকারভেদ-
ক) একমুখী সলিড স্ল্যাব।
a) গার্ডার এবং বীম সাপোর্টের উপর স্ল্যাব।
b) ষ্টীল বীমের উপর স্ল্যাব।
c) ডেক স্ল্যাব।
খ) একমুখী রিবড স্ল্যাব।
গ) প্রিকাষ্ট স্ল্যাব।
দ্বিমুখী স্ল্যাবঃ(Two way slab) যে সমস্থ স্ল্যাব চার দেওয়াল বা বীমের উপর অবস্থান করে এবং স্ল্যাবের দুই দিকেই প্রধান গুলো ব্যবহার করা হয়, তাকে দ্বিমূখী স্ল্যাব বলে। যখন স্ল্যাবটি বর্গাকার হয় অথবা স্ল্যাবটির
২। দুইদিকে রিইনফোরসমেন্টএর প্রকারভেদ-
ক) দ্বিমুখী সলিড স্ল্যাব।
a) একসাথে ঢালাইকৃত বীমের উপর স্ল্যাব।
b) ষ্টীল বীমের উপর স্ল্যাব।
খ) দ্বিমুখী রিবড স্ল্যাব।
গ) বীম বিহীন স্ল্যাব।
a) ড্রপ প্যানেল বা কলাম ক্যাপিটাল বা উভয়ের সমন্বয়ে গঠিত ফ্লাট স্ল্যাব।
b) ড্রপ প্যানেল বা কলাম ক্যাপিটাল বিহীন ফ্লাট স্ল্যাব।
c) রিবড স্ল্যাব।
তবে সামগ্রিকভাবে আর.সি.সি. ফ্লোর স্ল্যাবকে পাঁচ ভাগে ভাগ করা হয়েছে-
ক) একমুখী স্ল্যাব।
খ) দ্বিমুখী স্ল্যাব।
গ) ফ্লাট স্ল্যাব।
ঘ) রিবড স্ল্যাব।
ঙ) আর.বি. স্ল্যাব।
মেঝে স্ল্যাবের সজ্ঞা ও প্রকারভেদ(All kinds of floor slab)
ঝড়, বৃস্টি, রোদ, তাপ ইত্যাদি প্রাকৃতিক অবস্থা থেকে রক্ষা পেয়ে দালানের মধ্যে যাতে নিরাপদে তথা আরাম-আয়েশের সাথে বসবাস করা যায় সেজন্য ভবন বা দালানের উপর য আচ্ছাদন বা ঢাকনা দেওয়া হয় তাকে ছাদ বলে।
ছাদ প্রধাণত তিন প্রকার-
১। ঢালু ছাদ।
২। সমতল ছাদ।
৩। বাঁকানো ছাদ।
১। গঠন পদ্ধতি অনুসারে ঢালু ছাদ তিন প্রকার-
ক) সিংগেল ছাদ।
খ) ডাবল ছাদ।
গ) ট্রাস্ট ছাদ।
ক) সিংগেল ছাদ আবার পাঁচ প্রকার-
a) লিন-টু-ছাদ।
b) কাপল ছাদ।
c) কাপল ক্লোজ ছাদ।
d) সিজারস ছাদ।
e) কলাম বীম ছাদ।
গ) ট্রাস্ট ছাদ আবার আট প্রকার-
a) কিং-পোস্ট ছাদ।
b) কুইন পোস্ট ছাদ।
c) ম্যানসারড ছাদ।
d) কম্পোজিট ছাদ।
e) বেলফাস্ট ছাদ।
f) লেমিনেটেড ছাদ।
g) স্টীল ছাদ।
২। সমতল ছাদ তিন প্রকার-
a) টালী বর্গার ছাদ।
b) ঢালাই ছাদ।
c) ঝুলন্ত খিলানোর ছাদ।
৩। বাঁকানো ছাদ দুই প্রকার-
a) শেল ছাদ।
b) ডোম ছাদ।
একমুখী সলিড স্ল্যাবের ডিজাইনের ধাপ সমুহ – Design step of one way solid slab
একমুখী স্ল্যাব ডিজাইনের ক্ষেত্রে স্ল্যাবের ছোট স্প্যান বা প্রস্থকে স্প্যান হিসাবে ধরা হয়, এবং এই প্রস্থ বরাবর ১ (এক) মিটারের একটি ফালি (Strip ) বিবেচনা করে বীমের ন্যায় ডিজাইন করা হয়।
ধাপ-১ ডিজাইন লোড (Step-1: Design Load )
( ক) স্ল্যাবের ওজনঃ (Weight of Slab )
ACI কোড অনুযায়ী স্ল্যাবের মোট গভীরতা বা পুরুত্ব (t ) নির্ণয় করে কংক্রিটের একক ওজনের সাহায্যে প্রতি বর্গমিটারে স্ল্যাবের ওজন নির্ণয় করা হয়।
উল্লেখ্য, স্ল্যাবের নুন্যতম পুরুত্ব বা গভীরতা, বেন্ডিং মোমেন্ট দ্বারা সঠিক বলে বিবেচিত হতে হবে।
( খ) স্ল্যাবের প্রতি বর্গমিটারে লাইভ লোড ও অন্যান্য ডেড লোডের পরিমান।
( গ) স্প্যানের উপর মোট বিস্তৃত লোড।
তাহলে, W= ( স্ল্যাবের ওজন + লাইভ লোড + অন্যান্য লোড) × স্প্যান দৈর্ঘ্য ।
ধাপ-২ সর্বোচ্চ শিয়ার (Step-2: Maximum shear )
বীমের ন্যায় স্ল্যাবের প্রান্ত অবস্থার উপর নির্ভর করে সর্বোচ্চ শিয়ার, V এর মান নির্ণয় করা হয়।
( ক) সাধারণ ভাবে স্হাপিত এবং অবিচ্ছিন্ন স্ল্যাবের ক্ষেত্রে, সর্বোচ্চ শিয়ার V = W/2
( খ) আংশিক অবিচ্ছিন্ন স্ল্যাবের ক্ষেত্রে,
১। বিচ্ছিন্ন প্রান্তের শিয়ার বল, V = 0.4 W
২। অবিচ্ছিন্ন প্রান্তের শিয়ার বল, V = 0.6 W
ধাপ-৩ সর্বোচ্চ বেন্ডিং মোমেন্ট (Step-3 Maximum bending moment )
বীম ডিজাইনের ন্যায় স্ল্যাবের প্রান্ত অবস্থার উপর নির্ভর করে স্ল্যাবের সর্বোচ্চ বেন্ডিং মোমেন্ট, M এর মান নির্ণয় করা হয়।
সাধারণ ভাবে স্হাপিত স্ল্যাবের ক্ষেত্রে, সর্বোচ্চ বেন্ডিং মোমেন্ট M = WL/8
পুরপুরি অবিচ্ছিন্ন স্ল্যাবের ক্ষেত্রে, সর্বোচ্চ বেন্ডিং মোমেন্ট M = WL/12
আংশিক অবিচ্ছিন্ন স্ল্যাবের ক্ষেত্রে, সর্বোচ্চ বেন্ডিং মোমেন্ট M = WL/10
ধাপ-৪ স্ল্যাবের গভীরতা (Step-4 Depth of slab )
কার্যকরী গভীরতা, d = √M / Rb
এখানে, M = সর্বোচ্চ বেন্ডিং মোমেন্ট
b = বিবেচিত ফালির প্রস্হ = 1m = 100 cm.
R = ½ fc jk
k = k / (n+ fs / fc)
j = 1 – k/3
মোট গভীরতা = কার্যকরী গভীরতা + রডের ব্যাস / ২ + মুক্ত কভারিং।
স্ল্যাবের ক্ষেত্রে মুক্ত কভারিং ২ সেমি এবং রডের কেন্দ্র থেকে কভারিং ২.৫ সেমি ধরা হয়।
উল্লেখ্য, মোট গভীরতার মান ধাপ-১ এ অনুমানকৃত পুরুত্ব বা গভীরতার চেয়ে বেশি হবেনা।
ধাপ-৫ টান রডের ক্ষেত্রফল (Step-5 Area of tensile reinforcement )
১ মিটার ফালির জন্য রডের পরিমান,
As = M / fsjd
রডের কেন্দ্র থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত দুরত্ব বা ব্যবধান (Spacing )
S = b as / As
এখানে, as = নিরধারিত আকরের একটি রডে ক্ষেত্রফল
প্রধান রডের সর্বোচ্চ ব্যবধান-
স্ল্যাবের পুরুত্বের ৩ গুণ বা ৪৫ সেমির বেশি হবেনা।
আশা করি এই পোস্টটি আপনাকে দরকারী কিছু তথ্য দিয়েছে। পরবর্তী পোস্ট পাওয়ার জন্য সাথেই থাকুন! সমাহার ডট নেট-এর পণ্য সামগ্রী ও সেবা পেতে রিসেলার, সেলার সেন্টারে সরাসরি যোগাযোগ করুন।

Leave a Reply